Wellcome to National Portal
Text size A A A
Color C C C C

সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৪ জুন ২০২৪

এক নজরে তিতাস

কোম্পানির নাম  তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিসন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন পিএলসি (টিজিটিডি পিএলসি)
কার্যক্রম শুরুর তারিখ  নভেম্বর ২০, ১৯৬৪
নিবন্ধিত অফিস  তিতাস গ্যাস ভবন, ১০৫ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ,  কাওরান বাজার বাণিজ্যিক এলাকা. ঢাকা-১২১৫
কর্পোরেশন   বাংলাদেশ তৈল, গ্যাস ও খনিজ কর্পোরেশন(পেট্রোবাংলা)
প্রশাসনিক মন্ত্রণালয়  বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়
তিতাস অধিভূক্ত এলাকা  বৃহত্তর ঢাকা ও বৃহত্তর ময়মনসিংহ
প্রথম পাইপলাইন নির্মিত  ব্রাহ্মণবাড়িয়া হতে ডেমরা  ১৪" ডিএন X ১০০ পিএসআইজি X ৫৮ মাইলস
প্রথম গ্যাস সরবরাহ  এপ্রিল ২৮, ১৯৬৮ সিদ্ধিরগঞ্জ তাপবিদ্যুত কেন্দ্র থেকে
অনুমোদিত মূলধন  ২,০০০.০০ কোটি টাকা।
পরিশোধিত মূলধন (৩০ জুন ২০২৩ অনুসারে)  ৯৮৯.২২ কোটি টাকা।
গ্যাস বিক্রয় (অর্থবছরে ২০২২-২৩)  ১৪,৪৫৯.৪১ এমএমসিএম
বিক্রয় রাজস্ব (অর্থবছরে ২০২২-২৩)  ২৬,৩৮৭.১২ কোটি টাকা
জাতীয় কোষাগারে অর্থপ্রদান
৭০৬.৯২ কোটি টাকা
ক্রেতাদের সংখ্যা (৩০ জুন ২০২৩ অনুসারে) মোট ২৮,৭৮,৭৫৭
পাওয়ার (সরকার) ১৭ টি
পাওয়ার (ব্যক্তিগত) ৩৯ টি
সার ০২ টি
শিল্প ৫,৪২৯ টি
সিএনজি ৩৯৬ টি
ক্যাপটিভ পাওয়ার ১৭৫৫ টি
বাণিজ্যিক ১২,০৭৮ টি
আবাসিক ২৮,৫৩,০৫৩ টি
মিটারযুক্ত আবাসিক ৫৯৫৯
জেনারেটরযুক্ত আবাসিক ১৭
ইট ভাটা ১২
নির্মিত পাইপলাইন (৩০ জুন ২০২৩ অনুসারে) ১৩,৩৯১.৩২ কিমি
সেলস মার্কেট শেয়ার: ৫৫%
গ্যাস সরবরাহ (ক্ষেত্র) উৎস : তিতাস,হবিগঞ্জ,নরসিংদী,কৈলাসটিলা,বিবিয়ানা,মৌলভীবাজার,শ্রীকাইল এবং বাংগুরা গ্যাস ক্ষেত্র, বাখরাবাদ, মেঘনা এবং এলএনজি।
টার্মিনাল মহেশখালী
জনশক্তি (৩০ জুন ২০২৩ অনুসারে): ১,৯২১
কর্মকর্তা : ৯৬৭
কর্মচারী: ৯৫৪
প্রধান নির্বাহী : প্রকৌ. মো. হারুনুর রশিদ মোল্লাহ্
ডিএসই সঙ্গে তালিকাভুক্ত : জুন ৯, ২০০৮
সিএসই সঙ্গে তালিকাভুক্ত : জুন ১৯, ২০০৮

১৯৬২ সালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তিতাস নদীর তীরে বিরাট গ্যাস ক্ষেত্র আবিষ্কৃত হওয়ার সাথে সাথে বাংলাদেশে প্রাকৃতিক গ্যাস ব্যবহারে এক নতুন দিগন্তের সূচনা হয় এবং ১৯৬৪ সালের ২০ নভেম্বর তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিসন এন্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিমিটেড জন্মলাভ করেছে। তৎকালীন সরকারি প্রতিষ্ঠান শিল্প উন্নয়ন সংস্থা কর্তৃক ১৪″ব্যাস সম্পন্ন ৫৮ মাইল দীর্ঘ তিতাস-ডেমরা সঞ্চালন পাইপলাইন নির্মাণের পর ১৯৬৮ সালের ২৮ এপ্রিল সিদ্ধিরগঞ্জ তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে গ্যাস সরবরাহের মাধ্যমে কোম্পানী বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু করে। একটি প্রগতিশীল জাতীয় প্রতিষ্ঠান হিসেবে তিতাস গ্যাস তার সেবার মাধ্যমে জনগণের আস্থাভাজন হবার গৌরব অর্জন করেছে।